বাংলাদেশে পর্যটন শিল্প একটি সম্ভাবনাময় ক্ষেত্র। আর প্রবাসীদের আয়ে তো বিশাল অবদান আছে, তা সবাই জানি। এই দুই ক্ষেত্রে যোগাযোগকে আমরা কিছুটা সহজতর করতে মনোযোগ দিয়েছি। এ নিয়ে কিছু অনলাইন পোর্টাল ফিচারও করেছেন। আমরাও আপনাদেরকে কিছুটা ধারনা দেয়ার চেস্টা করবো এই লিখনিতে।

প্রথমে পর্যটকদের নিয়ে শুরু করি- ধরুন আপনি, কক্সবাজার, বা সিলেটের অপরুপ লীলাভূমি দেখতে বেড়াতে যাবেন। পার্সোনাল গাড়ি হয়ত, সকলের নেয়া সম্ভব হয়না, তাই সার্ভিসের গাড়ি দিয়ে কিছুটা পথ যাবার পর, বাকিটা গাড়ি খুজে নিয়ে যেতে হয়। এতে সময় ও আর্থিক বিরম্বনায় পরতে হয়। কিন্তু গাড়ীরখোজ ডটকম থেকে যাত্রার আগেই আপনার কাঙ্খিত গাড়ির ড্রাইভার বা মালিকের সাথে কন্টাক্ট করে রাখতে পারেন। যাস্ট ওখানে নেমে উনাকে কল দিলেই, উনি চলে আসবেন। এবং আপনাকে আপনার পছন্দ অনুযায়ী স্থানগুলোতে নিয়ে ঘুরিয়ে আসবেন। এতে আপনার ট্যুর গাইডের কাজটিও সেরে ফেলতে পারবেন।

দেখুন, আপনি ঢাকায় বসে থেকে কক্সবাজার বা সিলেটের কাউকে সহজেই কন্টাক্ট করে নিতে পারলেন, আবার গাইডের কাজটিও সেরে ফেললেন। কতটা সহজ হলো আপনার জন্য। তবে এর জন্য ড্রাইভার আপনার কাছে অগ্রীম বুকিং মানি চাইতে পারে। এবং আপনার আইডি কার্ডের ছবিও চাইতে পারে। কারন, আমরাও যাত্রী নিরাপত্তার জন্য তাদের আইডি কার্ডের ছবি নিয়েছি। আপনি সম্মত হলে, এগুলো ড্রাইভারকে দিতে হবে।

এবার আসি, আমাদের প্রবাসীদের নিয়ে- আপনি ইউরোপ, বা মধ্যপ্রাচ্যের যে কোন দেশ থেকে গাড়ীরখোজ ডটকম এ প্রবেশ করে, অথবা GARIRKHUJ এপটি ডাউনলোড করে, ঢাকা, চট্রগ্রাম বা সৈয়দপুর এয়ারপোর্ট সিলেক্ট করে যে কোন ধরনের গাড়ি বাছাই করে, সরাসরী ড্রাইভারের সাথে যোগাযোগ করে, আপনার ফ্লাইট সম্পর্কে জানিয়ে, গাড়ি ভাড়া করতে পারেন। অথবা আপনার নিকটতম কোন আত্মীয়কে ড্রাইভারের নাম্বার দিয়ে যোগাযোগ করাতে পারেন। তাহলে গাড়ি ভাড়া দ্বিগুন দেয়া থেকে বেচেঁ যাবেন। এবং অনেকটাই সহজ ভাবে আপনার গন্তব্যে পৌছে যেতে পারবেন।

গাড়ীরখোজ ডটকম এই ট্রিপগুলো থেকে কোন প্রকার কমিশন গ্রহন করেনা। বিধায় বাড়তি ভাড়া নেয়ার প্রশ্নই আসেনা। সাধারন মানুষের যাত্রা বিরম্বনার কথা বিবেচনা করেই, এই ওয়েবসাইট ভিত্তিক এপসটি তৈরী করা হয়ছে। যাত্রীগন স্বাচ্ছন্দবোধ করলেই আমরা আনন্দিত।

বিদেশ থেকে যেভাবে গাড়ি ভাড়া করবেন:

প্রথমে ওয়েবসাইটের হোম পেজ ওপেন করবেন। এপস হলে “গাড়ী খুজুন” এ ক্লিক করবেন। হোম পেজ ওপেন করে ঢাকা এয়ারপোর্ট হলে, >ঢাকা বিভাগ > ঢাকা জেলা > তারপর উত্তরা এয়ারপোর্ট সিলেক্ট করবেন। গাড়ি বাছাই করবেন আপনার প্রয়োজন অনুসারে। এরপর গাড়ীখুজুন সবুজ রংয়ের একটা বক্স আছে, ক্লিক করলেই ঐ এলাকার সবগুলো গাড়ির লিস্ট ওপেন হবে। কল করুন বাটন দেখতে পাবেন। ক্লিক করলে ফোন নাম্বার দেখাবে। আবার নাম্বারের উপর ক্লিক করলে কল দেয়ার জন্য ডায়ালে চলে আসবে। কল করে ভাড়া যাচাই করে কনফার্ম করে নিতে পারবেন। এভাবে যেকোন এরিয়ায় গাড়ীগুলো খুব সহজেই সিলেক্ট করে গাড়ি ভাড়া করবেন। পোস্ট পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। মতামত থাকলে জানাবেন।